কাহালুতে স্ত্রীর গায়ে আগুন, স্বামী গ্রেফতার

0
173

কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়ার কাহালুতে যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীর গায়ে আগুন দিয়ে ঝলছে দেওয়ার ঘটনার কাহালু থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে শনিবার ভোর রাতে উপজেলার বাথই কাজীপাড়া থেকে স্বামী আবুল কালাম আজাদ (৩৫)কে গ্রেফতার করেছেন।

ঘটনার পর থেকে গ্রেফতারকৃত আবুল কালাম আজাদ বাথই কাজী পাড়া গ্রামে তার বোন জামাই রেজাউল ইসলামের বাড়ীতে আত্ন গোপনে ছিলেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কাহালু উপজেলার সদর ইউনিয়নের জয়তুল গ্রামের তোজাম্মেল হোসনের পুত্র আবুল কালাম আজাদ এর সাথে উপজেলার পাইকড় ইউনিয়নের খিয়ার ভুগইল গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে রুজিনা বেগমের ১৪ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। ঘরসংসার কালে ছানি বাবু (১১) ও কামরুন নাহার কুসুম (৪) নামে দুইটি সন্তান জম্মগ্রহন করেন। বিবাহের পর হতে স্বামী আবুল কালাম আজাদ তার স্ত্রী রুজিনা বেগমের নিকট টাকা দাবী করেন। ৫ বছর পূর্বে রুজিনার পিতা আব্দুর রহমান মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে জামাই আবুল কালাম আজাদকে ২ লক্ষ টাকা প্রদান করেন।

পরবর্তীতে আবুল কালাম আজাদ তার স্ত্রী রুজিনাকে বিভিন্ন সময়ে বাবার বাড়ী হতে টাকা আনতে বলেন। রুজিনা যৌতুক বাবদ আর টাকা দিতে পারবে না বলে জানালে আবুল কালাম আজাদ তাকে শরীরিক ও মানষিক ভাবে নির্যাতন করে আসছিল।
গত ৩০ জুুনআবুল কালাম আজাদ আবারও যৌতুকের টাকা দাবী করিলে তার স্ত্রী রুজিনা যৌতুক বাবদ আর কোন টাকা দিতে পারবে না বলে জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। রুজিনা প্রতিবাদ করলে তার স্বামী আবুল কালাম আজাদ তার পিতার প্ররোচনায় এলোপাথারি ভাবে মানপিট করে গুরুতর যখম করে রুজিনার শরীরের পড়নের কাপড়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। আগুনে রুজিনার পিঠ পুড়িয়ে ঝলছে যায়। প্রতিবেশি ও তার বাবার বাড়ীর লোকজন এসে রুজিনাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় গত ৩ জুলাই তারিখে রুজিনার পিতা আব্দুর রহমান বাদী হয়ে কাহালু থানায় জামাই সহ ২ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে কাহালু থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জিয়া লতিফুল ইসলাম এর সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, মামলা দায়ের করার পরেই ভিকটিমের স্বামী আবুল কালাম আজাদকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং অন্য আসামীকে গ্রেফতারের জোর প্রচেষ্টা চলছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here