ইকরামুল ইসলাম, বেনাপোল প্রতিনিধি:
যশোরের শার্শায় বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাচ্ছে ভোরের পাখি”র খাদ্য। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও করোনার আগ্রাসন শুরু হয়েছে। অসহায় হয়ে পড়েছে দেশের। ‘মানুষ মানুষের জন্য’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে শার্শার সামাজিক সংগঠন “ভোরের পাখি” করোনা ভাইরাসের জন্য চলা লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়া উপজেলার পান্তাপাড়া ও চটকাপোতা গ্রামের ১০১টি অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী।
মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সকালে “ভোরের পাখি”র সভাপতি মেহেদি হাসানের কার্যালয়ের সামনে সকল সদস্যের উপস্থিতিতে পান্তাপাড়া ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মোঃ আয়ুব আলী এবং চটকাপোতা গ্রাম কমিটির সভাপতি রেজাউল ইসলাম ফটিক ও সমাধান সম্পাদক আব্দুল গফফার ও যুবলীগ নেতা সাহেব আলীর কাছে এই খাদ্যসামগ্রী হস্তান্তর করা হয়।
সরেজমিন সূত্রে জানা যায়, সংগঠনের প্রতিদিনের ত্রাণসামগ্রী বিতরনের অংশ হিসেবে আজ পান্তাপাড়ায় ৫১টি ও চটকাপোতায় ৫০টি কর্মহীন অসহায় পরিবারের মাঝে এসব ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। বিতরণকৃত খাদ্যসামগ্রীর ভেতর চাল, ডাল, আলু, সাবানসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য রয়েছে।
ত্রাণসামগ্রী বিতরণকালে সংগঠনের সভাপতি উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শেখ আফিল উদ্দিন এমপি মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক অসহায়, দুস্থ ও কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অংশ হিসেবে আজ পান্তাপাড়া ও চটকাপোতা গ্রামের ১০১টি পরিবারের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, “ভোরের পাখি”র সকল সদস্যরা দেশের এই ক্রান্তিকালে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এবং অসহায় ও কর্মহীন মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী। দেশের যেকোন সংকটময় মূহুর্তে “ভোরের পাখি”র সদস্যরা এভাবেই এগিয়ে আসবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
পান্তাপাড়া ও চটকাপোতা গ্রামের খাদ্যসামগ্রী পাওয়া ব্যক্তিদের কাছে জানতে চাইলে তারা আবেগে আপ্লুত হয়ে বলেন,  এই সংকটময় সময়ে “ভোরের পাখি” আমাদের পাশে এসে দাড়িয়েছে আমাদের খাদ্যসামগ্রী দিচ্ছে। তারা “ভোরের পাখি”র সকল সদস্যদের এই সংকটে পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here