গাবতলীর নশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু’র বিরুদ্ধে ভিজিডির চাল কম দেয়ার অভিযোগ

0
418

এনামুল হক
গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি :

বগুড়া গাবতলীর নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মিন্টুর বিরুদ্ধে ভিজিডি কার্ডের চাল কম দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, ভিজিডি কর্মসূচী আওতায় (অর্থবছর মে-২০২০) বর্তমান সরকার সারাদেশের ন্যায় গাবতলী উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের অনুকূলে মোট ২হাজার ১’শ ২টি কার্ডের বিপরীতে মোট ৬৩.০৬ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদে ১’শ ৫৬টি কার্ডের বিপরীতে ৪.৬৮০মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। সরকারী নিয়ম অনুযায়ী জনপ্রতি ৩০কেজি করে ভিজিডির চাল দেয়ার কথা।

কিন্তু নশিপুর ইউপি’র চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মিন্টু আজ সোমবার সকালে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিডি কার্ডধারীদের মাঝে জনপ্রতি ২৫কেজি করে চাল দেয়া শুরু করেন।

নশিপুর ইউনিয়নের মাঝবাড়ী গ্রামের ভিজিডি কার্ডধারী মৃত নাজেমুদ্দিনের মেয়ে শান্তি বেগম, বাবু মিয়ার স্ত্রী রানী বেগম ও মৃত আব্দুস সালাম ফকিরের স্ত্রী হামিদা বেগমের সঙ্গে কথা বললে তারা ২৫কেজি করে চাল পেয়েছেন বলে চেয়ারম্যান মিন্টুর উপর ক্ষোভপ্রকাশ করেন। কার্ডধারীরা ভ্যানযোগে চাল অন্যত্র নিয়ে যাবার সময় স্থানীয় লোকজন কিছু চাল আটকে রাখেন।

খবর পেয়ে বাগবাড়ী ফাঁড়ীর ইনচার্জ আরিফুল ইসলাম নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদে গেলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়।

এ প্রসঙ্গে নশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মিন্টু স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, তিনি ভিজিডি কার্ডধারীদের মাঝে জনপ্রতি ২৮কেজি করে চাল দিয়েছি।

ঐ ইউনিয়নের দায়িত্বশীল ট্যাগ অফিসার উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামকে নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, গাবতলীর ইউএনও’র নির্দেশে করোনার কাজে ব্যস্ততা থাকার কারণে নশিপুরে যাওয়া সম্ভব হয়নি। তাছাড়া চেয়ারম্যান সাহেবও ১১মে ভিজিডির চাল দেয়ার বিষয়টি দেরিতে বলেছেন।

তবে এ প্রসঙ্গে ইউএনও রওনক জাহানকে গতকাল বিকেল সোয়া ৩টায় মোবাইল ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here