স্পোর্টস ডেস্ক: জুয়াড়ির কথা গোপন করায় এক বছরের জন্য ক্রিকেটে নিষিদ্ধ সাকিব আল হাসান। বর্তমানে পরিবারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন তিনি। সেখান থেকে ডয়েচে ভেলের সঙ্গে লাইভ আড্ডায় যুক্ত হয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের পোস্টারবয়। সে আড্ডায় সাকিব জানালেন, নিষিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় জীবনে অনেক বড় শিক্ষা পেয়েছেন তিনি।

সাকিব বলেন, ‘এই (নিষিদ্ধ থাকার) সময়টা আমার জন্য অবশ্যই কঠিন। আমি আবার সব সময় খারাপের মধ্যেও ভালো খোঁজার চেষ্টা করি। এর ভেতরে ভালো বিষয় হলো, আমার স্ত্রী সন্তানসম্ভবা ছিল। এই সময় তার পাশে থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এবার তার পাশে আমি থাকতে পেরেছি।

প্রথমবার তার পাশে আমি থাকতে পারিনি। এখন বাচ্চার দেখভাল করারও সুযোগ পাচ্ছি। এটা একটা ভালো দিক। আর সব সময় মনের ভেতরে চলতেই থাকে যে আমি খেলতে পারব না বা পারছি না। যদিও এখন কোনো খেলাই হচ্ছে না। কবে আবার ক্রিকেট শুরু হবে সেটাও অজানা।

আমার মাঠে নামতে এখনো সাড়ে পাঁচ কিংবা ছয় মাসের মতো বাকি। যদি একমাস পরেও খেলা শুরু হয় তারপরও অনেকদিন আমাকে মাঠের বাইরে কাটাতে হবে। এই বিষয়টা অবশ্যই খারাপ লাগে। এটা (নিষেধাজ্ঞা) থেকে আমি অনেক কিছুই শিখেছি। অনেক সময় আমরা অনেক কিছু সিরিয়াসলি নেই না বা অবহেলা করি। কিন্তু এটা কোনো ভাবেই উচিত নয়। আমার মনে হয় এই বড় শিক্ষাটা আমি পেয়েছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here