তীরের প্রচেষ্টায় প্রকৃতির স্বাদ পেলো গন্ধগোকুল ছানা

0
370

নিজস্ব প্রতিনিধি:

গত ২৮ মে বগুড়া শাজাহানপুরের বি-ব্লক থেকে গ্রামবাসী অসচেতনতা বসত আটক করে গোন্ধগোকুলের একটি পরিবারকে তথ্যটি সরকারি আজিজুল হক কলেজের শিক্ষার্থীদের পরিবেশবাদী সংগঠন “টিম ফর এনার্জি এন্ড ইনভায়রনমেন্টাল রিসার্চ (তীর)” কে জানানো হলে তীরের সদস্য মোঃ সাব্বির আহমেদ শাকিল ও মোঃ তানভীর হোসেন দ্রুত ঘটনা স্থলে গিয়ে মা গন্ধগোকুলটি মৃত অবস্থায় পেলেও বেঁচে যাওয়া চার গোকুল ছানা বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট, বনবিভাগ ও বাংলাদেশ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ ফেডারেশন (বিবিসিএফ) এর হস্তক্ষেপে শাজাহানপুর পুলিশের সহায়তায় লালন পালনের জন্য তীরের সদস্যদের নিকট হস্তান্তর করেন।

সদ্য জন্মানো সাবক গোকুলগুলো মা হারিয়ে বেঁচে থাকার অনিশ্চিতায় সাব্বির ও তার পরিবার যে প্রচেষ্টা চালিয়েছেন তা খুবই বিরল। ছানাগুলো নিজের সন্তানে মতই লালিত হচ্ছিলো তীর পরিবারে। নিজের হাতে তিন বেলা খাওয়ানো, পশু হাসপাতালে নিয়মিত পরীক্ষা নিরীক্ষা চলাকালীন অসুস্থতা জনিত কারনে ১৯ মে দুটি এবং ২৫ মে একটি গন্ধগোকুল ছানা মারা যাওয়া ব্যাথিত করে সবার মন। তবুও হাল না ছাড়ার গল্পটা তীর পরিবার ঠিকই জানে প্রচেষ্টা চলে শেষ গন্ধগোকুল ছানাটি বাঁচতে। পশু হাসপাতালের পরামর্শে নিয়মিত পরিচর্যায় পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠে গন্ধগোকুল ছানাটি। যথেষ্টে পরিনত হওয়ায় ৬ জুলাই কতৃপক্ষের পরামর্শে আবার প্রকৃতিতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে ছানাটি।

তীরের সভাপতি মোঃ আরাফাত রহমান জানায়, উদ্ধারের পর থেকে মা হারা ছানা গুলোকে নিয়ে বেশ উদ্বেগ ছিলো। সাব্বিরের পরিবারের প্রচেষ্টার যে কোনো কোনো ঘাটতি ছিলো না তা দেখেছি। প্রকৃতিতে গন্ধগোকুল ছানাটিকে ছেড়ে দিতে পেরে আমরা আনন্দিত। এছাড়া বগুড়া বার্ড ক্লাবের সভাপতি তৌহিদ পারভেজ বিপ্লব জানান- আমরা ছানাগুলোকেযে অবস্থায় পেয়েছিলাম তাতে আমরা সংকিত ছিলাম কিন্তু সাব্বির ও তার পরিবারের আন্তরিকতায় আশাবাদী হই গোকুল ছানাগুলো প্রকৃতিতে ফিরিয়ে দেয়া সময়ের দ্বাবী। টাইঙ্গাইল এম.এম আলী কলেজের বিভাগীয় প্রধান জনাব এস. এম ইকবাল স্যার জানান, যেকোনো মা হারা সদ্য ছানা লালন পালন করে বাঁচিয়ে রাখা বড় চেলেঞ্জ। সাব্বিরের সেই প্রচেষ্টা আমি কাছে থেকে লক্ষ্য করেছি। তীরের মত এমন সংগঠন প্রতিটি কলেজে থাকা প্রয়োজন। সাব্বির জানান যে, বিগত ৩৮ দিন আমি ও আমার পরিবার তীরের উপদেষ্টা ও অভিজ্ঞদের পরামর্শ মত পশু চিকিৎসকের নির্দেশনা মতে দেখাশোনা করেছি যাতে এদের প্রকৃতিতে ফিরিয়ে দিতে পারি। একটি গন্ধগোকুল ছানাকে বাঁচিয়ে প্রকৃতিতে মুক্ত করতে পেরে আমরা খুশি তবে হারানোর কষ্টটাও রয়েছে। ভবিষ্যতে তীরের সাথে পরিবেশ রক্ষায় আরো কাজ করে যেতে চাই এবং এ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here