নন্দীগ্রামে হাফেজ কর্তৃক ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অন্তসত্বা

0
632
নিজস্ব প্রতিবেদক: 
বগুড়ার নন্দীগ্রামে ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অন্তসত্বা। ঘটনাটি ঘটেছে নন্দীগ্রাম উপজেলার ৪ নং থালতামাঝগ্রাম ইউনিয়নের দাঁড়িয়াপুর গ্রামে।
প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, দাঁড়িয়াপুর গ্রামের দাঁড়িয়াপুর  সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী একই গ্রামের রকিব উদ্দিনের ছেলে হাফেজ রুহুল কুদ্দুস (৫২) এর বাড়িতে আরবী পড়তে যায়। পড়া শেষে সবাইকে ছুটি দিলেও শিশু মেয়েটিকে ছুটি না দিয়ে ছবক নিবেন বলে তাকে বসতে বলে। অন্য শিশুরা চলে যাওয়ার পরে সে শিশু মেয়েটিকে জোরপূর্বক মুখে কাপড় বেঁধে ধর্ষন করে।
এক পর্যায়ে ধর্ষনের কথা কারো কাছে বললে তাকে মেরে ফেলার হুমকী প্রদান করে। প্রাণভয়ে শিশু মেয়েটি ঘটনাটি কাউকে জানায়নি।
হঠাৎ মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে মেয়ের বাবা-মা তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। গত ৪ জুলাই নন্দীগ্রাম হেলথ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড ডায়গনেস্টিক সেন্টারে শিশুটির আল্ট্রানোগ্রাম করা হয়।
রিপোর্টে মেয়েটিকে ৩ মাসের গর্ভবতী বলে উল্লেখ করা হয়।
ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় ব্যপক তোলপাড় ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয় এবং পুরো এলাকা দোষী ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন। এক পর্যায়ে গত ৮ জুলাই গ্রাম্য মাতব্বররা ৫ লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে, কিন্তু শিশুর বাবা রাজী না হয়ে আইনের আশ্রয় নেয়।
এ বিষয়ে থানার এসআই চাঁন মিয়ার সাথে কথা বললে তিনি জানান উক্ত ঘটনায় ১জনের নামে মামলা হয়েছে, তাকে গ্রেফতারের জন্য জোর প্রচেষ্টা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here