প্রান্তিক কৃষকের মুখে হাসি ফুটালো ছাত্রলীগ

0
272
মুনিরুজ্জামান মুনির, নন্দীগ্রাম প্রতিনিধি:
বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন মাঠ সোনালী ধানে ভরে গেছে। সোনালী আভায় মাঠ ভরে উঠলেও রয়েছে শ্রমিক সংকট। তবে সেই সংকট কাটাতে কৃষকের পাশে দাঁড়াচ্ছে তরুণ ছাত্ররা।
উপজেলার সদর ইউনিয়নের ইউসুবপুর গ্রামের মাঠে কাস্তে নিয়ে ধান কাটতে নেমেছে নন্দীগ্রাম উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
পেশাদার শ্রমিকরা আসার আগে ধানাকাটা নিয়ে কিছুটা হলেও দুশ্চিন্তা কমেছে, এই এলাকার কৃষকদের। কৃষকের মুখে হাসি ফোটাতেই মাঠে নেমেছে ছাত্ররা। যাদের হাতে হয়তো কখনও কাস্তে উঠেনি । সংকটময় এই সময়ে প্রান্তিক কৃষকের পাশে থাকতে চায় উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) সকালে থেকে তারা উপজেলার ইউসুবপুর গ্রামের প্রান্তিক চাষী মিন্টু মিয়ার জমিতে ধান কাটা শুরু করে। শ্রমিক সংকটের কারণে এই কৃষক তার জমির পাকা ধান কাটতে পারছিলনা। কৃষক মিন্টুর জমির ধান কেটে তার বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে তারা। কৃষক মিন্টু মিয়া জানান, আমি অল্প কিছু জমিতে ধান চাষাবাদ করেছি। কিন্তু ধানকাটার শ্রমিক পাচ্ছিলাম না। এনিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় ছিলাম। এখবর পেয়ে ছাত্ররা বিনামুল্যে আমার জমির ধান কেটে দিয়েছে। তিনি আরও জানান, এ জমির ধান কাটতে চার-পাঁচ হাজার টাকা লাগতো। কিন্তু ছাত্রদের কারণে সেই টাকা বেচে গেল আমার। আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।
উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আল নোমান নাদিম জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের কৃষকদের পাশে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই কেন্দ্রীয় ও জেলা ছাত্রলীগের নির্দেশনায় আমরা উপজেলার প্রান্তিক কৃষকদের ধান কেটে তাদের বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছি। আমাদের এ কাজ অব্যাহত থাকবে।
নন্দীগ্রাম পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মশিউর রহমান জানান, ধান কাটা কাজে আমরা অভ্যস্থ নই। তার পরেও ধান কেটে আটি বেঁধে তা কৃষকের বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে দিচ্ছি। তিনি আরও জানান, পরিশ্রমের মাঝেও আনন্দ লাগছে। আমাদের কাছে কেউ যদি সহযোগিতা চায় তবে আমরা আমাদের দল নিয়ে তার পাশে উপস্থিত হয়ে যাব ইনশাল্লাহ। গ্রাম থেকে অনেকটা দুরের ধান ক্ষেত থেকে, পাকা ধান কেটে কৃষকের বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে দেয়া বিশাল একটি কাজ। আর সেই কাজে সহযোগিতা করছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। আশার করা হচ্ছে খুব শিগগিরি দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পেশাদার ধান কাটার শ্রমিকরা আসবে। তখন সোনালী ফসল ভরা মাঠ থেকে ধান উঠবে কৃষকের ঘরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here