স্পোর্টস ডেস্ক:  জরুরি পরিস্থিতিতে ফিফার বদলি খেলোয়াড় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা সমালোচনা। পাঁচ খেলোয়াড় পরিবর্তনের নতুন এই নিয়মকে অনেকে সাদুবাদ জানিয়েছেন। আবার কেউ বিরোধিতাও করছেন। তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন জানিয়েছে নতুন এই নিয়মেই চলবে দেশের ফুটবল।
জরুরি পরি¯ি’তিতে ফিফার বদলি খেলোয়াড় বাড়ানোর সিদ্ধান্তে খুশি হতে পারেনি দক্ষিণ আমেরিকার শীর্ষ ফুটবল সংস্থা কনমেবল। এক টুইট বার্তায় নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেন সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট আলেহান্দ্রো দমিনগেস। ‘এই পরিবর্তন আমাদের অবাক করেছে। এটি আমাদের কনফেডারেশনের সঙ্গে পরামর্শ করে করা হয়নি।

ফিফার নতুন নিয়েমে এগিয়ে থাকা দল সময় ক্ষেপনের সুযোগ পাবে। এতে খেলার পরিবেশ নষ্ট হবে।’ তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলছেন, ‘নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ফিফা এই নিয়ম করেছে। ওই সময়ের মধ্যে আমাদের ঘরোয়া ফুটবল হলে নতুন নিয়ম প্রয়োগ করব। করোনার সময়ে খেলোয়াড়রা তাদের ফিটনেস ধরে রাখার কাজটি ঠিকমত করতে পারেনি। বিশ্বব্যাপী ফুটবলারদের কথা চিন্তা করে, তাদের ইনজুরিমুক্ত রাখতে ফিফা এই প্রস্তাবটি দিয়েছিল ইন্টারন্যাশনাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ড (আইএফএবি)কে। সেটা অনুমোদন হয়েছে। আমরা নতুন নিয়মেই খেলা চালাব।’

স্থগিত হয়ে যাওয়া ফুটবল লীগগুলো পূনরায় চালু করা হলেও দ্রুত যেন শেষ করা যায়, সে লক্ষ্যে ফুটবলার পরিবর্তনে সাময়িক এই নিয়মের অবতারণা করা হলো। কারণে, দ্রুত লীগ শেষ করতে হলে সপ্তাহে ২-৩টি ম্যাচও খেলতে হতে পারে ক্লাবগুলোকে। তাতে ফুটবলারদের ওপর চাপ পড়বে। সেটা কমাতেই এই আইন তৈরি করা হয়েছে। তবে অনেকে ধারনা করছেন পাঁচ ফুটবলার পরিবর্তনের সুযোগ নিয়ে এগিয়ে থাকা দল হয়তো সময়ক্ষেপনের কৌশল নিতে পারে। যে কারণে পাঁচবার খেলা থামিয়ে ৫ খেলোয়াড় পরিবর্তন করা যাবে না। আগেরমতো তিনবার খেলা থামিয়েই ৫ খেলোয়াড় পরিবর্তন করতে হবে। সেক্ষেত্রে একবার থামিয়ে একাধিক কিংবা বিরতির সময়ে খেলোয়াড় পরিবর্তন করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here