বগুড়ায় বিএনপির পদবঞ্চিত কর্মীদের মারপিটে আহত যুবনেতা জাহাঙ্গীর

0
818
স্টাফ রিপোর্টার

বগুড়ায় পদবঞ্চিত কর্মীদের হাতে আহত হয়েছেন যুবনেতা জাহাঙ্গীর।
সেই সাথে বিএনপি নেতা শেখ তাহা উদ্দিন নাহিনও মারপিটের শিকার হন।

আদালত সংলগ্ন সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে মারপিটের ঘটনা ঘটে বলে প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান। এসময় জাহাঙ্গীর সমর্থকরা পালিয়ে যায় বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার বেলা ১২ টার দিকে মারপিটের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার প্রতক্ষ্যদর্শী সূত্রে জানাগেছে, ৬ মামলায় আদালতে হাজির দিতে আসে সাবেক শহর যুবদলের সভাপতি মাসুদ রানাসহ পদবঞ্চিত কর্মী সমর্থকরা। হাজিরা শেষে ওই কর্মী সমর্থকরা আদালত প্রাঙ্গন ত্যাগ করে ঘোড়ার মোড় (ভিএম স্কুলের) সামনে গেলে, অপরদিক থেকে জেলা যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম ও বিএনপি নেতা শেখ তাহা উদ্দিন নাহিনসহ বেশ কিছু নেতাকর্মী রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন।
এরই এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীর, পদবঞ্চিত কর্মীদের উস্কানিমূলক কথা বলায়, উভয় পক্ষ বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে বলে সাংবাদিকদের জানান মাসুদ রানা। এরই প্রেক্ষিতে মাসুদ রানার ৭/৮ জন কর্মীদের ওপর জাহাঙ্গীর সমর্থকরা হামলা চালালে, মাসুদ রানার কর্মীরা জাহাঙ্গীরকে ধাওয়া দিয়ে মারপিট করে। জাহাঙ্গীরের সাথে শেখ তাহা উদ্দিন নাহিনও প্রহত হয়।

পরে আহত জাহাঙ্গীরকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন তাঁর নেতাকর্মীরা।

মারপিটের এ ঘটনায় যুবনেতা জাহাঙ্গীর ও শেখ তাহা উদ্দিন নাহিনকে বার বার ফোন করলেও তাঁরা ফোন রিসিভ করেনি।

তবে মাসুদ রানা অভিযোগ করে দৃষ্টি ২৪.কমকে জানান, আমরা দীর্ঘ সময় পদবঞ্চিত। দলের জন্য এত ত্যাগস্বীকার করলাম, জেল খাটলাম, মামলা খেলাম। প্রতিনিয়ত হাজিরা দিই আদালতে। বর্তমান নেতারা তৃণমূলের খোজ খবর না নিয়ে টাকার বিনিময়ে কমিটি বাণিজ্য করে দলের বারোটা বাজিয়ে চান্দাবাজি করে, দলটাকে শেষ করে দিচ্ছে।

ঘটনার প্রক্ষিতে, সাবেক জেলা যুবদলের সভাপতি ও ১১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সিপার আল বখতিয়ার দৃষ্টি ২৪.কমকে জানান, অনাকাঙ্ক্ষিত এ ঘটনা কাম্যনয়। উভয় পক্ষকে শান্ত থাকতে হবে। দলের পদবঞ্চিত কর্মীদের ব্যাপারে হাইকমান্ড অবগত রয়েছেন। শান্তিপ্রিয় রাজনৈতিক সুষ্ঠুধারা ফিরিয়ে আনতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

এ ঘটনা নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here