বগুড়ার পুলিশ সুপারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রাণে বাঁচলেন পুলিশ কর্মকর্তা

0
128
সুমন সরদার:

মানুষ মানুষের জন্য, জিবন জিবনের জন্য একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারেনা…..এমনি এক মানবিকতার অন্যন্য দৃষ্টান্তের নাম সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী, বিপিএম সেবা। যিনি বগুড়ায় এসপি হিসেবে যোগদানের পর থেকেই দায়িত্বের পাশাপাশি জনসাধারণের জন্য তো বটেই, তাঁর সদস্যদেরও দেখভাল করছেন। আর এজন্যই নিশ্চিত মৃত্যু’র কাছ থেকে প্রাণে বেঁচে গেলেন জেলা গোয়েন্দা শাখা বগুড়ায় কর্মরত এস.আই(নিঃ) সাইফুল ইসলাম।

গত ১৭ই সেপ্টেম্বর বেলা ১১টার দিকে এস.আই সাইফুল ইসলাম কর্মরত অবস্থায় হঠাৎ ব্রেইন ষ্টোকে আক্রান্ত হন। তীব্র মাথা ব্যথা অনুভব করেন এবং অসুস্থ হয়ে পড়েন।

তাৎক্ষণিকভাবে ওসি ডিবি সাইহান ওলিউল্লাহ বিষয়টি পুলিশ সুপারকে অবগত করেন।

এস.আই সাইফুল ইসলামকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের আই.সি.ইউ বিভাগে দ্রুত ভর্তি করা হয় এসপির নির্দেশনায়। পরবর্তীতে পুলিশ সুপার, বগুড়া স্ব-শরীরে ওই হাসপাতালে উপস্থিত হয়ে অসুস্থ এসআই সাইফুলের খোঁজ-খবর নেন এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসকদের সাথে পরামর্শ করেন।

এসআই সাইফুলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকগণ তাকে দ্রুত এয়ার এম্বুলেন্সে ঢাকায় প্রেরণ করে মস্তিষ্কের অপারেশনের জন্য মতামত দেন, অন্যথায় তাকে প্রাণে বাঁচানো যাবেনা বলে জানান।

চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী ওই দিনই বিকেল সোয়া ৪টায় পুলিশ সুপার এর ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় স্বল্প সময়ের মধ্যে এয়ার এম্বুলেন্স ভাড়া করে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করার ব্যবস্থা করেন এবং ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসআই সাইফুল ইসলামের ভর্তি ও জরুরী চিকিৎসা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন এবং অপারেশনের ব্যবস্থা করেন।

অপারেশনের পরে এসআই সাইফুল ইসলামকে.০৭/১০/২০২১ তারিখে আইসিইউ থেকে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, রাজারবাগ ঢাকায় ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখানে ১০/১০/২০২১ খ্রিঃ তারিখে হঠাৎ তার মাথা ব্যথা অনুভূত হলে দ্রুত পপুলার হাসপাতাল ঢাকায় ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে এসআই সাইফুল ইসলামের অবস্থার উন্নতি হয়। এরপর ১৭/১০/২০২১ পপুলার হাসপাতাল, ঢাকা থেকে বগুড়ার বাসায় নিয়ে আসা হয়।

বাড়িতে আসার পরও পুলিশ সুপার সার্বক্ষণিক তার খোঁজ-খবর নিচ্ছেন এবং ওসি ডিবি বগুড়া এর মাধ্যমে এসআই সাইফুল ইসলামের পরিবারের জন্য চাল, ডাল, মাছ, মাংস, ফলমূল, তরি-তরকারিসহ যাবতীয় প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তার বাসায় পৌঁছে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে অসুস্থ এস.আই সাইফুল ইসলাম বলেন, পুলিশ সুপার স্যার এর একান্ত প্রচেষ্টায় আমি নতুন জীবন পেয়েছি। পুলিশ সুপার মহোদয় তাৎক্ষনিক উদ্যোগ না নিলে আজ স্ত্রী সন্তানের কাছে ফিরে আসতে পারতাম না। অধিনস্তের প্রতি বিরল মানবিকতা দেখিয়েছেন পুলিশ সুপার মহোদয়। আমি এবং আমার পরিবার ওনার কাছে সারাজীবন কৃতজ্ঞ থাকবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here