বগুড়ায় অস্ত্র-বিস্ফোরকসহ নব্যজেএমবির ৪ সদস্য আটক

0
260

ষ্টাফ রিপোর্টার:

নাশকতার উদ্দ্যেশ্যে বগুড়ায় সমবেত হওয়া নব্য জেএমবির ৪ সক্রিয় সদস্যকে অস্ত্র-বিস্ফোরক ও বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

শিবগঞ্জ থানার চন্ডিহারা এলাকা থেকে গত রাত দেড়টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। শনিবার সকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিংকালে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন বিপিএম,পিপিএম। নব্য জেএমবি’র সদস্যদের কাছ থেকে পুলিশ ১ টি ৭.৬৫ পিস্তল, ম্যাগজিন, ২ রাউন্ড গুলি, দেশি ওয়ান শুটার, ২ টি কার্তুজ, বার্মিজ চাকু, চাপাতি, ১ কেজি পটাশিয়াম ক্লোরেটসহ বোমা তৈরির সরঞ্জাম জব্দ করে।

আটককৃতরা হলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আইটি শাখার সদস্য, গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানার তরশ্রীরামপুর এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে তানভীর আহম্মেদ @আবু ইব্রাহিম (২৫), মিডিয়া শাখার প্রধান সাংগঠনিক পদবিধারী টাঙ্গাইল জেলার ভুয়াপুর থানার জগতপোড়া এলাকার খন্দকার গোলাম সারোয়ারের ছেলে জাকারিয়া জামিল (৩১), এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মেসী বিভাগের ছাত্র ময়মনসিংহ জেলার চকশ্যামপুর এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে আতিকুর রহমান (২৮), একই এলাকার আব্দুল হাকিমের ছেলে আবু সাঈদ (৩২)।

ব্রিফিংয়ে ডিআইজি আব্দুল বাতেন আরও জানান, বছরের শুরুতে জানুয়ারিতে আশুলিয়াতে জঙ্গি তানভীরের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ জঙ্গি পুস্তক, ইলেকট্রনিক ও ড্রোন তৈরির সরঞ্জামসহ তাঁর স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ওই মামলায় তানভীর পলাতক ছিল। তাঁর বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে আশুলিয়া থানায় মামলা রয়েছে। সে ড্রোন তৈরির মাধ্যমে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল।
জঙ্গি জাকারিয়া জামিল জঙ্গিসংক্রান্ত অনলাইনে বিভিন্ন প্রকাশনা আরবি থেকে বাংলায় অনুবাদ করে প্রচার করত। অপর জঙ্গি আতিকুর মধ্যেপ্রাচ্য যুদ্ধে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তিনি আরও জানান, উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরক দিয়ে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ৫০টির মত বোমা তৈরি সম্ভব। জঙ্গিদের বিরুদ্ধে শিবগঞ্জ থানায়, অস্ত্র, বিস্ফোরক ও সন্ত্রাস বিরোধী আইনে পৃথক মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন। ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রেসব্রফিংকালে পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঁইয়া বিপিএমসহ পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here