বগুড়ায় মাহাবিপন্ন গৃধিনী শকুন উদ্ধার

0
268
বগুড়া প্রতিনিধি:
বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলার জুরি অনন্তপুর গ্রাম থেকে মাহাবিপন্ন বিশাল আকৃতির হিমালয়ান গৃধিনী শকুন উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে শকুনটি উদ্ধার করা হয়।
স্থানীরা জানান, ওই গ্রামের মাঠে অসুস্থ্য অবস্থায় একটি বিশাল আকৃতির হিমালয়ান গৃধিনী শকুন দেখতে পান। তখন গ্রামবাসি শকুনটিকে খাঁচায় আটকে রাখেন।
খবর পেয়ে উত্তম কুমার নামের এজন গনমাধ্যম কর্মী রাজশাহী বন্যপ্রাণী প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ ও বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট ঢাকা বন বিভাগে ফোন দেন। পরে বন বিভাগ শকুনটিকে উদ্ধার করার জন্য আইইউসিএন বাংলাদেশকে দায়িত্ব দেন।
শকুন আটকের খবর পেয়ে আইইউসিএন এর শকুন সংরক্ষণ প্রকল্পের উত্তরবঙ্গের কনসালটেন্ট মিজানুর রহমান উদ্ধার কাজটি পরিচালনা করেন । এসময় উদ্ধার কাজে অংশগ্রহণ করেন সরকারি আজিজুল হক কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী ও শিক্ষার্থীদের পরিবেশবাদী সংগঠন “তীর” এর কর্মী সাব্বির আহামেদ সাকিল, তৌফিক হাসান, রবিউল ইসলাম রাসেল ও সাংবাদিক উত্তম কুমার এবং শিবগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তোফায়েল ইসলাম সাবুসহ এলাকার সাধারণ মানুষ ও গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন ।
শকুনটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা ও পরিচর্যার জন্য বগুড়ায় নেওয়া হয়েছে । ভালচার কনসালটেন্ট মিজানুর রহমান বলেন, শকুনটি মোটামুটি সুস্থ ও সবল করার পর আইইউসিএন এর সিনিয়ার প্রোগ্রাম অফিসার এর অনুমতি নিয়ে আইইউসিএন এর ‘শকুন উদ্ধার ও পরিচর্যা কেন্দ্র’ সিংড়া জাতীয় উদ্যান দিনাজপুরে প্রেরণ করা হবে ।
তিনি আরও বলেন, হিমালয়ী গৃধিনী প্রজাতির এই শকুনগুলো বাংলাদেশে সচারাচর দেখা যায় না। ধারণা করা হচ্ছে, উত্তরে প্রচণ্ড শীতের কারণে হিমালয় থেকে শকুনটি খাবারের সন্ধানে বগুড়ায় এসেছে।
প্রসঙ্গত, পৃথিবীতে দ্রুততম বিলুপ্ত হতে চলা প্রাণী শকুন। তাই শকুনমাত্রই বিশ্বে ‘মহাবিপন্ন’। বাংলাদেশে শকুনের পরিস্থিতি খুবই খারাপ। আন্তর্জাতিক প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সংঘের (আইইউসিএন) হিসেবে বাংলাদেশে মাত্র ২৬৮টি শকুন রয়েছে। আর বগুড়ায় সরকারি আজিজুল হক কলেজের শিক্ষার্থীদের পরিবেশবাদী সংগঠন‚ টিম ফর এনার্জি এন্ড ইনভায়রনমেন্টনাল রিসার্চ (তীর)বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণে ২০১১ সাল থেকে উত্তরবঙ্গে কাজ করে আসছে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here