বাদুরের ৩টি জীবন্ত ভাইরাস ছিল উহানের ল্যাবে

0
197

একুশে টেলিভিশন:

চীনের উহান শহরের ভাইরোলজি ইনস্টিটিউটে বাদুরের তিনটি জীবন্ত ভাইরাস ছিল তা নিশ্চিত হওয়া গেছে। সম্প্রতি রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম সিজিটিএনকে এসব তথ্য জানিয়েছেন ওই ল্যাবের পরিচালক ওয়াং ইয়ানই। তবে তার মতে, কোভিড-১৯’র সঙ্গে ওই ভাইরাসের মিল নেই।

গত বছর ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে উৎপত্তি হয় প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের। উৎপত্তির পর অভিযোগ উঠে, উহান ইন্সটিটিউট অব ভাইরোলজি থেকেই ছড়িয়েছে এই ভাইরাস। এই গুঞ্জনের মধ্যেই উহান ল্যাবে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিয়ে কথা বললেন এর পরিচালক।

গত ১৩ মে ওয়াং ইয়ানয়ি’র এই সাক্ষাৎকার ধারণ করে সিজিটিএন। এটি শনিবার রাতে প্রচার করা হয়। ওই সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তাদের গবেষণাগারে যে তিনটি করোনাভাইরাস রয়েছে সেগুলোর সঙ্গে সার্স-কোভ-২ এর সাদৃশ্য খুঁজে পাওয়া গেছে ৭৯ দশমিক ৮ শতাংশ।

ইয়ানয়ি সাক্ষাৎকারে বলেন, আমরা বাদুড়ের তিনটি ভাইরাস নিয়ে কাজ করছিলাম। আমরা সার্স ভাইরাসের উৎস খোঁজার জন্যই গবেষণা করছিলাম। কিন্তু ওই সব ভাইরাসের সঙ্গে নতুন করোনা ভাইরাসের মিল প্রায় ৮০ শতাংশ। আর আমরা জানি নতুন করোনা ভাইরাসের সঙ্গে সার্সেরও ৮০ শতাংশ মিল রয়েছে। তবে ৮০ শতাংশ মিল মানে এখানে অবশ্যই পার্থক্য আছে।

ওয়াং ইয়ানই বলেন, ওই গবেষণাগারে বাদুড় থেকে কিছু করোনাভাইরাস আইসোলেট করে রাখা হয়েছিল। তাদের ল্যাবে যে কয়টি করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা হয়েছে সেগুলোর কোনটির সঙ্গেই কোভিড-১৯’র মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। উহানের ভাইরাস ল্যাব থেকে যে করোনা ছড়িয়েছে, এমন অভিযোগকে খাঁটি বানোয়াট গল্প বলে আখ্যায়িত করেন ওয়াং ইয়ানয়ি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here