বোরো চাষাবাদে ব্যস্ত নন্দীগ্রামের কৃষক

0
128
জাকারিয়া লিটন, নন্দীগ্রাম(বগুড়া)
বগুড়া জেলার কৃষি ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নন্দীগ্রাম উপজেলায় শুরু হয়েছে বোরো ধানের চাষাবাদ। গত আমন মৌসুমে ধানের দাম ভাল পাওয়ায় আগাম বোরো চাষে ঝুঁকে পড়েছে নন্দীগ্রামের কৃষকেরা।
দিনরাত জমিতে সেচ দেওয়া হালচাষ দেওয়া বীজতলা থেকে বোরো চারা উত্তোলনসহ নানা কাজে এখন ব্যস্ত কৃষক।
নন্দীগ্রাম উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায় এবছর ২০ হাজার ১শ ৫৫ হেক্টর জমিতে বোরো চাষাবাদ শুরু হয়েছে। যার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১ লক্ষ ২৬ হাজার ৯শ ৭৬ মেট্রিক টন। তবে এর চেয়ে বেশি লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের চাকলমা গ্রামের কৃষক মেহেদী হাসান মিঠু তার ৩০বিঘা জমিতে বোরো চাষাবাদ শুরু করেছে।
তার সাথে কথা বলে জানা যায়, চারা থেকে শুরু করে ডিজেল, বিদ্যুৎ ও সারের কোন সংকট নেই। এছাড়াও এবার শীতের তীব্রতা কম থাকায় বীজতলা ভালো হয়েছে এবং কোন চারা সংকট নেই। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে গত বছরের শীলাবৃষ্টিতে বোরো ধানের যে ক্ষয়-ক্ষতি তা এবার কাটিয়ে উঠা সম্ভব হবে।
নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়নের ভাদুম গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর আলম তার ২৫ বিঘা জমিতে ধানের চারা রোপন শুরু করেছে। তার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এবার আমন ধানের দাম ভাল পাওয়ায় আগাম বোরো ধানের রোপন শুরু করেছি। আশা করি ভাল ফলন পাব এবং গত বছরের বোরো ধানের ক্ষয়-ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারব।
এবিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার আদনান বাবুর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য একক ও দলীয় আলোচনাসহ কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে। এবার আমাদের যে লক্ষ্যমাত্রা আছে আশা করছি তার চেয়েও বেশী অর্জিত হবে। আমরা কৃষকদের লাইনে চারা রোপন করা জন্য দিকনির্দেশনা দিচ্ছি। লাইনে চারা রোপন করলে পোকা-মাকড়া দমনে অনেক সুবিধা হয় এবং ফলন বৃদ্ধি পায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here