ক্রীড়া ডেস্ক: বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটের সাফল্য কম নেই। তবুও কিছুটা ‘অবহেলার’ শিকার জাহানারা-রুমানা-সালমারা। ২০১৮ সালে ভারতকে হারিয়ে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টির শিরোপা জেতে বাংলাদেশ নারী দল। সুযোগ-সুবিধা কিংবা আন্তর্জাতিক সিরিজ খেলার সুযোগে বেশ পিছিয়ে নারী দল। অবশ্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ভালো কিছু পদক্ষেপও নিয়েছে। তবে সেটাও অপর্যাপ্তই বলা যায়। এশিয়া কাপ জয়ের পর সাফল্য-ব্যর্থতার মিশ্রণে বন্দি নারী দল। প্রত্যাশা অনুযায়ী আসেনি সাফল্য।

যার সর্বশেষ উদাহরণ, গত ফেব্রুয়ারী-মার্চে শেষ হওয়া নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সবগুলো ম্যাচ হেরে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জেতার আশা জাগালেও শেষ পযর্ন্ত ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ। অথচ এর আগে অনুশীলন ম্যাচে তারা দাপটের সঙ্গে হারিয়ে দিয়েছিল পাকিস্তানকে। কিন্তু মূল মঞ্চে সেই ছন্দ ধরে রাখতে পারেনি সালমা খাতুনের দল। বড় দলের সঙ্গে ম্যাচে খেই হারিয়ে ফেলার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে টাইগ্রেস অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদ বলেছেন, বড় দল যেমন অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে নিয়মিত খেলার সুযোগ না পাওয়ায় মানসিকভাবে তারা পিছিয়ে থাকেন।

সংক্ষিপ্ত সংস্করণের বিশ্বকাপে র‌্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বর দল নিউজিল্যান্ডকে মাত্র ৯৪ রানে গুটিয়ে দিয়েও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। সে হারের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে রুমানা আহমেদ ক্রিকেটের জনপ্রিয় পোর্টাল ক্রিকবাজকে বলেন, ‘সেদিন আমরা হেরেছি মূলত মানসিকতায় পিছিয়ে থাকার কারণে। জয়ের লক্ষ্যটা আমাদের কাছে খুব বেশি মনে হয়নি। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের মতো দলের সঙ্গে কখনো না খেলার বিষয়টি দলের মধ্যে একটা চাপ তৈরি করে। তাদের বোলারদের সম্পর্কে নূন্যতম ধারণাও ছিল না আমাদের। বড় দলের সঙ্গে কিভাবে খেলতে হয় সেটাও অজানা ছিল। স্বাভাবিকভাবেই একটা চাপ তৈরি হয়ে গিয়েছিল। যা থেকে আমরা বের হতে পারিনি।’

বড় দলের সঙ্গে খেলে মানসিকতার উন্নতির পথ বাতলে দিয়ে রুমানা বলেন, ‘আমরা ভারত-পাকিস্তানের সঙ্গে নিয়মিত খেলি। ভারত নারী ক্রিকেটের ভালো দল। তাদের বিপক্ষে খেলতে নামলে কঠিন কিছু মনে হয় না। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমরা প্রথমবার খেলেছি অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে। তাদের সঙ্গে আরো ভালো খেলার মতো দল আমরা। বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে যদি আমরা পাঁচ ম্যাচের একটা সিরিজ খেলার সুযোগ পেতাম সেক্ষেত্রে আমাদের পারফরমেন্স আরো ভালো হতে পারতো। টিভিতে তাদের খেলা দেখা আর মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার মধ্যে তফাৎটা কারো অজানা নয়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here