বিনোদন ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের কারণে থমকে গেছে পুরো বিশ্ব। অন্য সব কিছুর সাথে সাথে বন্ধ হয়েছে বিনোদন দুনিয়ার সব কাজও। প্রতি বছরই জমকালো আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদাকর কান চলচ্চিত্র উৎসব। তবে করোনার কারণে এ বছর উৎসবটি হওয়া না হওয়া নিয়ে চলে তুমুল আলোচনা। সবার ধারণা ছিল এই অবস্থায় কান কর্তৃপক্ষ হয়তো বাতিল ঘোষণা করবেন এবারের আয়োজন। কিন্তু শুরুর দিকে বাতিলের কোনো ঘোষণা দেওয়া হয়নি। পরবর্তীতে সার্বিক অবস্থা আরও খারাপের দিকে যাওয়ার পর বাতিলের ঘোষণা আসে। তবে পুরোপুরি নয়।

কান কতৃপক্ষ জানিয়েছে, উৎবটির পসরা না বসলেও ভিন্নরূপে আয়োজনের পরিকল্পনা চলছে। গত ১৩ই এপ্রিল ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মেত্রেঁদ্ধা ঘোষণা দেন, আগামী ১১ই মে পর্যন্ত দেশটি লকডাউন থাকবে। এছাড়া জুলাইয়ের মাঝামাঝি পর্যন্ত কোনো উৎসব বা অনুষ্ঠান আয়োজন করা যাবে না।

আয়োজকরা বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা ভেবেছিলাম, জুনের শেষ সপ্তাহে বা জুলাইয়ের প্রথমদিকে এবারের আসর আয়োজন করবো। কিন্তু প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সেই সুযোগ আর নেই। এ বছর উৎসবটি চেনা ঢঙে করাটা খুবই কঠিন। কিন্তু ভিন্ন উপায়ে এটি আয়োজন হবে। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে এরইমধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে। পেশাদার ফিল্ম সংশ্লিষ্টদের মত, কান উৎসব বিশ্ব চলচ্চিত্রের জন্য অন্যতম একটি বিষয়। যেকোনো উপায়ে এ বছরই এই আয়োজন দেখতে চায় তারা। এদিকে কান উৎসবের প্যারালাল বিভাগ ডিরেক্টর’স ফোর্টনাইট, ক্রিটিকস উইক ও এসিআইডি’র ২০২০ সালের আসর বাতিল করা হয়েছে। এ ৩টি বিভাগে জমা পড়া ছবিগুলোকে কীভাবে সহায়তা করা যায় সে ব্যাপারে কানের আয়োজকদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। তাছাড়া এ বছর কানের অন্যতম আকর্ষণ মার্শে দ্যু ফিল্ম-এর আয়োজন করা হচ্ছে অনলাইনে। ২২শে জুন থেকে শুরু হবে ভার্চুয়াল এই আয়োজন। শেষ হবে ২৬ জুন। মূল অফিশিয়াল সিলেকশনের বাইরে একটি পুরোপুরি বাণিজ্যিক বিভাগ হলো মার্শে দ্যু ফিল্ম। উৎসবের সময়ে প্যালে ডে ফেস্টিভ্যালের নিচতলার জায়গাটায় নির্দিষ্ট ফি দিয়ে যে কেউ তাদের ছবি দেখাতে পারবেন। প্রযোজনা সংস্থাগুলোর সুযোগ থাকে বুথ বা টেবিল ভাড়া নিয়ে কাজ তুলে ধরার। এ বছর অনলাইনেই বসবে সিনেমা কেনাবেচার এই আসর। তবে করোনার এ সময়ে অনলাইনে কানের মতো বড় মাপের চলচ্চিত্র উৎসব কতটা সফল হবে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here