দৃষ্টি২৪ডেস্ক: আগামী কয়েক সপ্তাহে মধ্যপ্রাচ্য থেকে প্রায় ২৯ হাজার বাংলাদেশি ফেরত আসবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের ধারণা মতে আগামী কয়েক সপ্তাহে ২৮ হাজার ৮৪৯ জন দেশে ফেরত আসতে পারে। তাদের জন্য কী ব্যবস্থা দরকার সেটি নিয়ে আমরা আলোচনা করছি।’

প্রবাসীদের বিষয়ে অনুষ্ঠিত পঞ্চম আন্তমন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে এক ভিডিও বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্য থেকে অনেক প্রবাসী দেশে ফিরছেন। আমাদের দেশে কোয়ারেন্টিন ব্যবস্থা কতটুকু আছে সেটি যাচাই করে আমরা তাদের ফেরত নিয়ে আসছি। তবে গত সপ্তাহে মধ্যপ্রাচ্য থেকে ৩ হাজার ৬৯৫ নাগরিক দেশে ফেরত এসেছেন। এদের একটি বড় অংশ জেল ফেরত অর্থাৎ করোনাভাইরাস শুরু হওয়ার পরে ওই দেশের সরকারগুলো তাদের মাফ করে দিয়েছে এবং তাদেরই আগে দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। ওমরাহ হজ যারা করতে গিয়েছিলেন এমন কিছু অনিবন্ধিত ও অবৈধভাবে অবস্থানকারী বাংলাদেশি, যাদের আটক করা হয়েছিল, তাদের ফেরত নিয়ে এসেছি।’

এছাড়াও ভারত, জাপান, সিঙ্গাপুরসহ অনেক দেশে বাংলাদেশিরা আটকা পড়ে আছেন, তাদের আনা হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে ২ হাজার ৮৫৩ জনকে ফেরত নিয়ে এসেছি। আরও কিছু আনা বাকি রয়েছে। ভারতে কিছু রয়েছে এবং তাদের বিশেষ ফ্লাইটে ফেরত আনা হবে। লন্ডন থেকে আসবেন, যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসবেন এবং এর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’
কুয়েতের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কুয়েত সরকার সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে এবং যারা নিবন্ধন করেছে তাদের ক্যাম্পে আটকে রেখেছে। কুয়েতে আমাদের তথ্যমতে প্রায় সাড়ে চার হাজার বাংলাদেশিকে ক্যাম্পে আটকে রেখেছে। আমরা শুনতে পেয়েছি ক্যাম্পে ঠিকমতো খাবার দেওয়া হয় না এবং আমরা মিশনে আলাপ করেছি যাতে তাদের খাবার দেওয়ার ব্যবস্থা করে। কুয়েত সরকার যখনই চাইবে আমরা তাদের নিয়ে আসবো।’
মালদ্বীপ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সেখান থেকে ৪০০ জন আসবে। আগেও কিছু বাংলাদেশিকে ফেরত আনা হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘মালদ্বীপে যাতে খাবারের অসুবিধা না হয় সেজন্য আমরা ১০০ টন খাবার পাঠিয়েছি এবং আরও দিচ্ছি। তাদের প্রেসিডেন্ট বলেছেন সেখান থেকে ১ হাজার ৫০০ লোক আসবেন এবং আমরা তাদের গ্রহণ করবো। ফ্লাইট যখন যাবে তখন খাদ্য দিয়ে সহায়তা করবো।’
সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনেকে আটকে আছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ওই দেশের সরকার সব দেশকে বলেছে তাদের নাগরিকদের নিয়ে যাওয়ার জন্য। ভারত তাদের ১ লাখ ৯৭ হাজার নাগরিককে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করছে। আমরাও আমাদের বাংলাদেশিদের ফেরত আনবো।
সৌদি আরব থেকে ৪ হাজার ২৬২ জনের ফেরত আসার সম্ভাবনা আছে বলেও জানান তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘জর্ডান থেকেও ফেরত আসার সম্ভাবনা আছে এবং ওমান থেকে আসবে ১ হাজার।’
লেবাননে অনেক বাংলাদেশি আটকা আছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তারা আবার ঝামেলায় আছেন। আইওএমের মাধ্যমে বিনা পয়সায় আনা যায় কিনা সেটি আমরা খতিয়ে দেখছি।’
ইরাক বড় সমস্যা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, সেখানে অনেক লোকের চাকরি চলে গেছে এবং আমরা চিন্তা করছি তাদের কীভাবে ফিরিয়ে আনা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here