শাজাহানপুরে ইভটিজিংয়ে বাঁধা দেয়ায় স্কুল ছাত্রকে মারপিট

0
331

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়ার শাজাহানপুরে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ে বাঁধা দেয়ায় রবিন (১৫) নামে এক স্কুল ছাত্রকে মারপিট করেছে দূর্বৃত্তরা।

রবিন উপজেলার কামারপাড়া উত্তরপাড়ার আয়েজ আলীর ছেলে। সে কামারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র।

এঘটনায় রবিনের মা সাহেরা বেগম বাদি হয়ে শনিবার রাতে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

রবিনের বড়ভাই আল আমিন জানান, শনিবার সন্ধা সাড়ে ৬টার দিকে তার ছোট ভাই রবিন বাড়ির পাশে জনৈক মজনুর দোকানে ডিম আনতে যায়। এসময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে চকচোপীনগর গ্রামের শান্ত (২২), বশির (২১) ও সাব্বির (১৮) সহ ৮-১০ জন রবিনকে একা পেয়ে এলোপাথারী মারধর করে। ধারালো চাকু বের করে হত্যার উদ্যেশ্যে আঘাতের চেষ্টা করলে দোকানদার মজনু মিয়া এগিয়ে এসে রবিনকে উদ্ধার করে। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

আল আমিন আরো জানান, ৮-১০ দিন আগে সন্ধার দিকে কামারপাড়া সরকারপাড়ার এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাস্তার উপর সাব্বির নামের ছেলেটি জড়িয়ে ধরে ইভটিজিং করে এবং তার ৭-৮ জন সহযোগী পাহারা দেয়। ওই সময় ছোটভাই রবিন নিষেধ করলে তারা রবিনকে এক সপ্তাহের মধ্যে মারপিটের হুমকি দেয়। এরই জের ধরে শনিবার সন্ধায় রবিনকে মারপিট করা হয়। শুধু তাই নয় এই গ্রæপ এলাকায় ইভটিজিং সহ বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম করে বেড়ায়। তাদের ভয়ে কেউ কোন কথা বলতে সাহস পায় না।

এবিষয়ে সাব্বিরের সাথে কথা বলবে তিনি মারপিটের কথা অস্বীকার করে বলেন, কাউকে মারপিট করা হয়নি। কারা মারপিট করেছে তা তার জানা নেই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মেহেদী হাসান জানান, উঠতি বয়সের ছেলেরা দল ধরে ঘুরে বেড়ায় আর বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম করে। এধরনের একাধিক ঘটনা রয়েছে। দিন দিন এরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

শাজাহানপুর থানার ওসি আজিম উদ্দীন অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here