শাজাহানপুরে লকডাউন; রাতের আধাঁরে পালায়ন, আতঙ্কে এলাকা ছাড়ছেন ভাড়াটিয়ারা

0
612

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বগুড়ার শাজাহানপুরে করোনা পজিটিভ স্বামী -স্ত্রী।  গতকাল শনিবার জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

ওই রাতেই আক্রান্তের বাড়ি লকডাউন করেন মাঝিড়া ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ মিজান।

লকডাউনের পর রাতের আধাঁরে পালিয়েছেন বাড়ির ভাড়াটিয়া। পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়াও বাড়ি ছেড়ে চলে যাচ্ছেন।

এতে করে আতঙ্ক বিরাজ করছে এলাকাজুড়ে।

আক্রান্ত যুগল সাইফুল ইসলাম এবং সবিনা বেগম দুজনই গার্মেন্স কর্মী। গত ১৭ মে তারা ঢাকা থেকে উপজেলার মাঝিড়ার বাড়িতে বেড়াতে আসেন।

প্রতিবেশি শহিদুল ইসলাম বলেন, রাত ১১টার দিকে গ্রাম পুলিশ লকডাউন করার পরই ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া সালেহা বেগম পালিয়েছেন। তার এক শিশু সন্তানও রয়েছে। ওই শিশুটিও অসুস্থ ছিল।  এছাড়া করোনায় আক্রান্ত সাইফুল ইসলামে বৃদ্ধা মা সাহেদা বেওয়াও রাতেই অন্যত্র চলে গেছেন।

এদিকে আজ রবিবার বেলা ১১টার দিকে করোনা আক্রান্তের পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়া সৌরভ ইসলামকে বাড়ির মালামাল নিয়ে অন্যত্র চলে দেখা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বাসিন্দা জানান, আক্রান্তরা কোন বিধি নিষেধ মানছেন না। লকডাউন অবস্থায় রাতের আধাঁরে পালাচ্ছে। এতে করে আমরা আতঙ্কে রয়েছি।

মাঝিড়া ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ মিজান বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব ইউএনও এবং ওসি স্যারের নির্দেশে শুধু আক্রান্তের বাড়ি লকডাউন করতে বলেছিল। আমি লকডাউন ঘোষনা করে দিয়েছি।

এবিষয়ে শাজাহানপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার মাহমুদা পারভীনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

এবিষয়ে জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ দৃষ্টি২৪ ডটকমকে মুঠোফোনে জানান, বিষয় গুলো দেখার জন্য থানা পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া রয়েছে।

তবে মাঝিড়া ইউনিয়নের দায়িত্ব থাকা থানার সেকেন্ড অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) রাম জীবন বলেন, যারা আক্রান্ত তারা বাড়ির মধ্যেই আছেন। আর ভাড়াটিয়া পালানোর বিষয়টি জানা নেই। আর আক্রান্তের মা ওই বাড়িতে থাকেন না। তবে আতঙ্কে এলাকা ছড়ার বিষয়টি তে কি আর করার।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here