ক্রীড়া ডেস্ক: গতবছরের ২৯শে অক্টোবর জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় সাকিব আল হাসানকে এক বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করে আইসিসি। ২০১৭ সালে একবার ও ২০১৮ সালে তিনবার সাকিবকে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দেন ভারতীয় জুয়াড়ি দীপক আগারওয়াল। সাকিব যদিও চারবারই সেই প্রস্তাব বাতিল করে দেন।
কিন্তু আইসিসিকে সেই বিষয়ে কিছু না জানানোয় নিয়ম অনুযায়ী শাস্তি পান সাকিব। কালো তালিকাভুক্ত পেশাদার জুয়াড়ি দীপক আগারওয়ালকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করল আইসিসি। যেটি শুরু হয়েছে গত ছয়মাস আগে থেকে। শেষ হবে ২০২১ সালের ২৭শে অক্টোবর। এই দুইবছর ক্রিকেট মাঠ কিংবা ক্রিকেটীয় সব কর্মকান্ডে নিষিদ্ধ থাকবেন দীপক।এক বিবৃতিতে এ সিদ্বান্তের কথা জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

সাকিবকে ফিক্সিংয়ের প্রলোভনে ফেলতে পেরেছিলেন না দীপক। পরে তার মুঠোফোনের কল রেকর্ড ও বার্তার মাধ্যমে সাকিবের সঙ্গে যোগাযোগের তথ্য পায় আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু)। ২০১৭ সালে ভারতীয় পুলিশ দীপক আগারওয়ালকে গ্রেফতার করেছিল। যথেষ্ট অভিযোগ না থাকায় ছাড়া পান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here