সারিয়াকান্দিতে রাস্তা নেই, ব্রীজ নির্মাণ! 

0
107

ইমরান হোসাইন রুবেল সারিয়াকান্দি (বগুড়া):

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে চন্দনবাইশা ইউনিয়নের প্রামানিক পাড়ায় রাস্তা নির্মাণ না করে ব্রীজ নির্মাণ করায় ব্রীজটি এলাকাবাসীর কোন কাজেই আসছে না। তবে গ্রামের মধ্য একটি ইট বিছানো ও পাকা রাস্তা রয়েছে। এতে রাস্তা নির্মাণ না করেই ব্রীজ করার কারণে এলাকাবাসীর মনে এখন নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানাযায়, ওই গ্রামে দক্ষিণ পাশের মৌজা ম্যাপে একটি রাস্তা রয়েছে। রাস্তাটির দৈর্ঘ্য প্রায় ১ কিলোমিটার। এ রাস্তার মাঝখান দিয়ে বয়ে গেছে মানস নদী। তবে কালক্রমে নদীটি পলিমাটি পড়ায় ভরাট হয়ে এখন সেটি খালে রুপান্তরিত হয়েছে। ওই খালের উপর কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) সেচ বিভাগ ১৬ মিটার লম্বা একটি ব্রীজ নির্মাণ করেছেন গত ৮/৯ মাস আগে। ‘হাইড্রেলিক ট্রাকচার’ নামে ব্রীজটিতে ব্যয় করা হয়েছে প্রায় ১৫লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এটি নির্মাণ করা হয়েছে।

ঘুঘুমারি প্রামানিক পাড়ার জালাল প্রাং বলেন, রাস্তা না থাকলেও ব্রীজ করার অনেক যুক্তি সংগত অনেক কারণ রয়েছে। গ্রামের মানুষ বৃদ্ধি পেয়েছে। বৃদ্ধি পেয়েছে ছাত্র/ছাত্রীও। এদের যাতায়াত সুবিধার্থে ব্রীজটি করা হয়েছে। আমাদের এমপি সাহেবের ভাই ব্রীজের কাজ করেছেন।

চন্দনবাইশা ইউপি চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেন দুলাল বলেন, মৌজা ম্যাপে রাস্তাটি আছে ঠিকই, কিন্তু গুরত্ব কম থাকায় এতদিন মাটিকাটা হয়নি বা রাস্তা বের করা হয়নি। অনেক রাস্তা আছে কিন্তু লোকজন ব্রীজের অভাবে যাতায়াত করতে পারেন না। সেখানে ব্রীজটি কেন নির্মাণ করল তা আমার বোধগম্য নয়। যারা ব্রীজটি নির্মাণ করেছেন আপনি তাদেরকেই বলুন, এটি কেন নির্মাণ করা হয়েছে। আমার কাছে এ প্রশ্নের কোন উত্তর নেই।

এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বিএডিসি সেচ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. মোহাইমিনুল ইসলাম বলেন, রাস্তা নাই কিন্তু ব্রীজ নির্মাণ করার কথা সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কাবিখা ও টিআর প্রকল্পের আওতায় মাটি কেটে রাস্তা নির্মাণ করা হবে শর্তে পূর্বেকার এমপি মহোদয়ের সুপারিশে ব্রীজটি সেখানে নির্মাণ করা হয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here