ডেস্ক প্রতিবেদক

চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস যতোটা ছড়িয়েছে তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ছড়িয়েছে নানা রকম গুজব। করোনার বাহক, ছড়িয়ে পড়া ও নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুজবে সয়লাব। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারীরা একটি সিংহের ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘রাশিয়ায় নাগরিকদের ঘরে বন্দি করে রাখার জন্য প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ৮০০ সিংহ রাস্তায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। যাতে নাগরিকরা হোম কোয়ারাইন্টান বা ঘরে থাকতে বাধ্য হয়।’

বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এই ছবির সত্যতা আসলে কতখানি? আসলেই কি রাশিয়াতে এমন কিছু করা হয়েছে? প্রকৃতপক্ষে ছবি এবং তার সাথে জুড়ে দেয়া তথ্যগুলো ভুয়া। রাশিয়ায় সরকার করোনা নিয়ন্ত্রণের অংশ হিসেবে মানুষকে কোয়ারাইন্টাইনে রাখতে কোথাও সিংহ ছাড়েনি। এমন কোনো সংবাদ রাশিয়ান বা অন্য কোনো সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়নি।

তাছাড়া বতর্মান বিশ্বব্যাপী জরুরি পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রান্ত যে কোনো সাধারণ সংবাদও বিশ্বগণমাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে। আর এ ধরনের অস্বাভাবিক উদ্যোগ রাশিয়া সরকার কর্তৃক নেওয়া হলে তা খবর আকারে প্রকাশিত না হওয়ার কোনো কারণ নেই।

প্রকৃতপক্ষে যে ছবিটির মাধ্যমে এই গুজব ছড়ানো হচ্ছে সেটি রাশিয়ায় তোলা নয়। এটি দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে তোলা ২০১৬ সালের ছবি। বৃটিশ সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইল ২০১৬ সালের ১৫ এপ্রিল ছবিটি প্রকাশ করে জানায়, মধ্যরাতে জোহনেসবার্গের রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো এই সিংটিকে দেখে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সিংহটি পোষা। স্থানীয় একটি প্রডাকশন হাউস বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ের জন্য কলম্বাস নামের সিংহটিকে ভাড়া করে এনেছে। শুটিং চলাকালিন এটি রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।

বর্তমানে বিশ্বব্যাপী মানুষ করোনা আতঙ্কে আতঙ্কিত। এই সুযোগে কিছু নীতিহীন মানুষ নানা রকম গুজব ছড়িয়ে স্রেফ মানুষের আতঙ্ককে দ্বিগুণ করে তুলছে। তাই আতঙ্কিত না হয়ে সঠিক তথ্য জানুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here